163+ Bengali Short Story | বাসর রাতে লাজুক বউয়ের কথা শুনে অবাক আমি

Bengali Short Story: বিয়ে ঠিক হবার পর থেকেই বাসর রাত নিয়ে অনেক কিছু ভেবেছিলাম। কিন্তু আস্তে আস্তে যখন বুঝতে পেরেছিলাম যে আমার বউ টা অনেক লাজুক প্রকৃতির মেয়ে তখন থেকেই আমি চিন্তিত।

কারন আমি নিজেও অনেক লাজুক, বউ যদি আমাকে সাহস না দেয় তাহলে হয়তো বউয়ের গালে একটা চুমু দেয়ার ও সাহস পাবো না। তাই ভাবছি আজকে রাতে কি হবে। ইতিমধ্যে আমি আমার প্রথম বিয়ে সম্পন্ন করে বউ বাড়িতে নিয়ে এসেছি, সে এখন আমার আত্মীয়দের সাথে কথাবার্তা বলছে।

Bengali Short Story

অপেক্ষার পালা শেষে চলে এসেছে সেই সময় যেই সময়ের জন্য প্রতিটি ছেলেই অপেক্ষা করে, যদিও যারা বিয়ের আগেই গার্লফ্রেন্ডের সাথে সব কিছু করে ফেলে, তাদের কথা ভিন্ন। তবে আমি এখনো কিছুই করিনি, এমনকি একটা গার্লফ্রেন্ড ও ছিলো না আমার।

যাই হোক, ঢুকে পরলাম বাসর ঘরে, ফুল দিয়ে সাজানো রুমটার চারিদিকে টাটকা ফুলের গন্ধ। আমার বউ মাথা নিচু করে খাটের উপরে বসে আছে, আমি দরজা বন্ধ করে ওর পাশে গিয়ে বসলাম। আমাকে দেখে একবার ও মাথা তুলে তাকায়নি আমার দিকে, আমি নিজেই ওর মাথা উঠিয়ে অপরূপ সুন্দর মুখটা দেখছি। আসলেই ওনেক সুন্দর ও।

আমি: আগে জানতাম না যে তুমি এতো বেশি সুন্দর। তুমি আসলেই তোমার ছবিগুলোর চেয়েও অনেক গুণ বেশি সুন্দরী।

বউ কিছু বললো না, শুধুমাত্র মুচকি হেসে আমাকে বুঝিয়ে দিলো যে আমার কথাগুলো তার ভালো লাগছে। ওর হাসিটাও অনেক সুন্দর।

আমি: তোমাকে একটা কথা বলার ছিলো।

বউ: (মুখে চিন্তা চিন্তা ভাব নিয়ে) কি কথা!

আমি: আরে এতো চিন্তা করো না, বাংলা নাটকের নায়কের মতো আমি বলবো না যে বিয়ের আগে আমার গার্লফ্রেন্ড ছিলো, আর আমি এখনো তাকে ভালোবাসি।

বউ: হি হি হি… আমি জানি আপনার গার্লফ্রেন্ড নেই, আর যদি থাকতো, তাহলে আজকে মাফ করে দিতাম।

আমি: সত্যি বলছো!

বউ: হ্যা, বিয়ের আগে আপনি কেমন ছিলেন, সেটা নিয়ে আপনাকে কখনো কোন কথা শোনাবো না, কিন্তু এখন আমি আপনার বউ, এখন যদি আমি ছাড়া অন্য কোন মেয়ের দিকে নজর দেন তাহলে মানবো না।

আমি: তুমি তো বেশ সুন্দর করে কথা বলতে পারো, আর তোমার মনটা অনেক সুন্দর, তোমার চিন্তা ভাবনা গুলো ও তোমার মতোই সুন্দর।

বউ: হি হি হি! বলতে হবে না বউ টা কার!

আমি: হা হা হা, আমি অনেক খুশি তোমার মতো বউ পেয়ে, যাই হোক, যে কথাটা বলতে চেয়েছিলাম, আমাদের তো বিয়ে ঠিক হয়েছে পরিবারের মাধ্যমে, তাই বিয়ের আগে তোমাকে কোন উপহার দিতে পারিনি, ইচ্ছা ছিলো, কিন্তু সম্ভব হয়নি।

বউ: যদি সম্ভব হতো তাহলে কি উপহার দিতেন?

আমি: সেটা তো ভাবিনি, তবে ইচ্ছে ছিলো তোমাকে জিজ্ঞেস করে তোমার পছন্দের কোন কিছু গিফট করবো। তুমি যা চাইতে, সেটাই দিতাম।

বউ: যা চাইবো তা ই দিবেন?

আমি: আমার সামর্থ্যের মধ্যে থাকলে অবশ্যই যা চাইবে তা ই দিবো, আজকে তো আর কিছু কেনা সম্ভব না, তুমি বলো কি উপহার চাও, সেটাই তোমাকে দিবো।

বউ: কিন্তু আমার তো আজকে চাই, আর আমি যা চাইবো তা আজকেই দেয়া সম্ভব, আর সেটাও আপনার সামর্থ্যের মধ্যে।

বাসর রাতে লাজুক বউয়ের কথা শুনে অবাক আমি

আমি: আজকেই! এখনই দিতে পারবো! এ আবার কেমন উপহার! আমার ব্যাংকে জমানো সব টাকা তোমার একাউন্টে ট্রান্সফার করতে বলবে না তো! যদিও সেটা এখন সম্ভব না, কারন এটা করার জন্য ব্যাংকে যেতে হবে। আর আমার তো কোন জায়গা জমি নেই, দলিলে সই করিয়েও লাভ হবে না।

বউ: কিন্তু আমি তো এমন কিছু চাইবো যেটার জন্য ১ পয়সা ও খরচ করতে হবে না।

আমি: (অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করলাম) বিয়ের রাতে আমাকে আর টেনশনে ফেলো না প্লিজ, বলো না কি উপহার চাও তুমি।

বউ: আমি চাই…

আমি: হ্যা, কি চাও, বলো প্লিজ…

বউ: আমি চাই যে আপনি নিজের হাতে আমার পোশাক পরিবর্তন করে দিন।

আমি: (আমার মনে খুশির বন্যা বইছে, তবুও না বোঝার ভান করে বললাম) মানে! ঠিক বুঝতে পারলাম না!

বউ: এই বিয়ের লেহেঙ্গা টা অনেক ভারি, এটা আর পরে থাকতে ইচ্ছে করছে না, তাই আলমারি থেকে আপনার পছন্দ মতো একটা থি-পিস নিয়ে আসুন, আর সেটা আমাকে নিজের হাতে পরিয়ে দিন।

আর কি বলবো! বলার মতো আর কিছুই নেই, বউ আমার কি চাচ্ছে সেটা তো সে ইঙ্গিত করেই দিয়েছে, এখন আমার একশনে নামার পালা। বউকে জড়িয়ে ধরে ঠোঁটে ঠোঁট লাগিয়ে চুমু দিতে শুরু করলাম। এতোদিন তো সবকিছু সিনেমা তে দেখেছি, আর এখন সরাসরি করবো।

বাসর রাত নিয়ে লেখা এই Bengali Short Story টি সম্পূর্ণ কাল্পনিক। এই prothomalo.org ওয়েবসাইটে প্রতিদিন নতুন গল্প আপলোড করা হয়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


five + 14 =